বিয়ের আগে ত্বকের যত্ন নেবেন কীভাবে?

বিয়েবাড়িতে পাত্রীই মূল কেন্দ্রবিন্দু। ওইদিন নজর থাকে কনের উপরই বেশি। দু-বাড়ির দু-ধরনের চিন্তা। মেয়েপক্ষ ভাবতে থাকে মেয়েকে সেরার সেরা দেখাবে তো? ছেলেপক্ষের কৌতূহল, বউটি লাল টুকটুকে পুতুলটি কিনা! অর্থাৎ কনের রূপ লাবণ্য নিয়ে সকলের মাথাব্যথার অন্ত নেই। আর ওই বিশেষ দিনে বর ও আত্মীয়দের মন জয় করতে কনেকে নিতে হয় আগাম প্রস্তুতি। কেমন হবে সেই প্রস্তুতি? তা জানতে আমাদের ক্যামেরা হাজির হয়েছিল মেক-আপ বিশেষজ্ঞ শেহনাজ় হুসেনের কাছে। দেখে নেওয়া যাক এ বিষয়ে তিনি কী কী বললেন –

শেহনাজ় হুসেনের মতে, বিয়ের দিন শুধু ভালো শাড়ি পরে ভালো মেক-আপ নিলেই হয় না। সেদিনে সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে হলে কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। তবে ঠিক কতদিন আগে থেকে বিশেষভাবে রূপচর্চা করতে শুরু করবেন, তা নির্ভর করছে ত্বকের কোয়ালিটির উপর।

মুখের যত্ন – দিনে দু’বার মুখ পরিষ্কার করুন। রাতে ক্লেনজ়িং বেশি জরুরি। ঘুমাতে যাওয়ার আগে মেক-আপ তুলতে ভুলবেন না। দূষণ থেকে ত্বককে বাঁচাতেও ক্লেনজ়িং মাস্ট। তাই রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার জরুরি। ক্লেনজ়ার ব্যবহারের পর শীতকালে হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে নিতে পারলে ভালো।

  • অ্যালোভেরা ও মধু – সব ধরনের ত্বকের জন্য এটি প্রযোজ্য। ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে এই মিশ্রণটি ভীষণই উপকারী। মুখে ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর জল দিয়ে ধুয়ে নিন। এতে ত্বক নরম থাকবে। আপনি ফিরে পাবেন জেল্লা।
  • গোলাপ জল – তুলো ভিজিয়ে নিন গোলাপ জলে। এবার ভিজে তুলো মুখে বুলিয়ে নিন। লাবণ্য ধরে রাখতে এটি ভীষণই জরুরি। সবধরনের ত্বকের যত্ন নেওয়া যেতে পারে গোলাপ জলে।
  • নারিশিং ক্রিম – এসব তো আপনি দিনের যে কোনও সময়ই করে নিতে পারেন। কিন্তু ত্বক ভালো রাখতে হলে রাতের বেলায় আপনাকে নিতে হবে বিশেষ যত্ন। ক্লেনজ়িংয়ের পর ব্যবহার করতে হবে নারিশিং ক্রিম। তবে শুধু ক্রিম নয়। তার সঙ্গে মিশিয়ে নিন কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল। এবার উপর-নীচ বরাবর ভালো করে ম্যাসাজ করুন অন্তত ২ মিনিট।

চোখের যত্ন – চোখের নীচের ত্বক খুবই পাতলা। তাই বলিরেখা পড়ে সহজেই সেখানে ধরা পড়ে বয়সের ছাপ। সেই ছাপ দূর করতে হলে আপনাকে যেতে হবে বিশেষ কিছু পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে। চোখের নীচের কালি ও বলিরেখা নির্মূল করতে হলে নিয়মিত লাগাতে পারেন আন্ডার আই ক্রিম। অন্তত ১৫ মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখুন ক্রিম। আমন্ড অয়েল দিয়েও এক মিনিট ম্যাসাজ করা যেতে পারে। তবে এক্ষেত্রে যে কোনও একদিক বরাবর ম্যাসেজ করতে হবে।

ঠোঁটের যত্ন – ঠোঁটের চামড়া ভীষণই পাতলা হয়। আর তৈলগ্রন্থি না থাকায় সহজেই রুক্ষ হয়ে পড়ে ঠোঁট। শীতকালে তো কথাই নেই। একটু যত্নের অভাব হলেই ঠোঁট ফেটে মুখের সৌন্দর্যের বারোটা বাজিয়ে দেবে। তাই এক্ষেত্রে মেনে চলুন শেহনাজ় হুসেনের পরামর্শ। ক্লেনজ়িংয়ের পর সারারাত ঠোঁটে লাগিয়ে রাখতে পারেন আমন্ড অয়েল বা আমন্ড ক্রিম। সান প্রোটেকটিভ লিপ বামও ব্যবহার করা যেতে পারে।

মনের যত্ন – নতুন পরিবেশে, নতুন পরিবারের সদস্যদের কাছে যাওয়ার আগে সব মেয়ের মনেই দেখা দেয় একটা অজানা আশঙ্কা। তার ছাপ পড়ে মুখের উপর। তাই শুধু বাইরে থেকে রূপচর্চা করলেই হবে না। মনও ভালো, আশঙ্কামুক্ত রাখা ভীষণই জরুরি। মনকে চাপমুক্ত রাখতে প্রতিদিন হালকা ব্যায়াম করা যেতে পারে। মেডিটেশন করতে পারলে আরও ভালো। চাইলে কিছুক্ষণ হাঁটতে পারেন। এটি শরীর ও মন উভয়ক্ষেত্রেই ফালদায়ী।

তাহলে আর দেরি নয়। সামনেই যাঁদের বিয়ের দিনক্ষণ স্থির হয়েছে এখন থেকেই ত্বকের যত্ন নিতে শুরু করুন। যাতে বিয়ের দিন সবার চোখে হয়ে উঠতে পারেন প্রকৃত সুন্দরী।

কমেন্টসমুহ
সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top