ত্বকের বন্ধু সানস্ক্রিন

অতি প্রাচীনকালে মিসরীয়রা সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে নিজেদের সুন্দর ত্বক রক্ষা করার জন্য জুঁইফুল, জলপাই নির্যাস ও বিভিন্ন ধরনের ভেষজ পদার্থ ত্বকে ব্যবহার করে থাকত। এই ধারণাকে ভিত্তি করেই গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন সানস্ক্রিন যা ক্রিম, লোশন, স্পা, ইমালশন ইত্যাদি নামে পাওয়া যায়।
সানস্ক্রিনে থাকে সান প্রটেকশন ফ্যাক্টর (এসপিএফ) যা সূর্যের আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বককে নিরাপদ রাখে। বাজারে সাধারণত ১৫ থেকে ৬০ এসপিএফযুক্ত সানস্ক্রিন পাওয়া যায়।
অতি বেগুনি রশ্মি তিন ধরনের যেমন_ আল্ট্রাভায়োলেট এ, আল্ট্রাভায়োলেট বি এবং আল্ট্রাভায়োলেট সি। শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা যে কোনো ঋতুতেই আল্ট্রাভায়োলেট এ এবং আল্ট্রাভায়োলেট বি ত্বকের জন্য বিপজ্জনক, যা শুধু সানবার্নই করে না, ত্বকের বলিরেখা, ফ্রেকলস, মেছতা, আঁচিল এমনকি স্কিন ক্যান্সারও হতে পারে। বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণ ক্ষমতা বেশি থাকে বলে এ সময়ে প্রয়োজন ছাড়া সূর্যের সংস্পর্শে না আসাই ভালো। যদি সূর্যের সংস্পর্শে আসতেই হয় তবে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন। সূর্য অতিবেগুনি রশ্মির প্রধান উৎস হলেও টিভি, টিউবলাইট, ট্যাব, কম্পিউটার দ্বারাও আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির সংস্পর্শে আসছি। তাই দিন দিন সানস্ক্রিনের ব্যবহার অপরিহার্য হয়ে উঠছে।
সানস্ক্রিন ব্যবহারের আগে অবশ্যই যাচাই করতে হবে এটি আপনার ত্বকের জন্য কতখানি কার্যকর বা উপকারে আসবে। প্রথমত সানস্ক্রিনটি ইউভিএ এবং ইউভিবি দুটোর বিরুদ্ধে কাজ করে। সানস্ক্রিনে বিদ্যমান কোনো উপাদানে আপনি অ্যালার্জিক কি-না, সর্বোপরি এটি হতে হবে ডার্মাটোলজিস্ট দ্বারা পরীক্ষিত। যেসব সানস্ক্রিনে রেটিনাইল পলিমিটেট ও অক্টোক্রাইলিন থাকে, সেগুলো ব্যবহার না করাই ভালো। এতে উপকারের চেয়ে ক্ষতিই হয় বেশি। সানস্ক্রিন ব্যবহারের সময় কিছু নিয়ম মেনে চলা জরুরি। যেমন_ রোদে, রান্না বা সাঁতারের ২০ মিনিট আগে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিতে হবে। ২-৩ ঘণ্টা পর আবার ব্যবহার করতে হবে। কারণ সানস্ক্রিনের কার্যকারিতা ৩ ঘণ্টা পর আর থাকে না।
অধিকাংশ মানুষ সানস্ক্রিন সম্পর্কে অভিযোগ করে থাকেন যে, সানস্ক্রিন ব্যবহারের পর ত্বক তেল চিটচিটে ভাব ও ত্বকের রঙ আরও কালো হয়ে যায়। তাই ডার্মাটোলজিস্টরা ত্বকের ধরন অনুযায়ী সানস্ক্রিন ব্যবহারের করতে বলেন, যেমন তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ওয়াটারবেজড লোশন বা ইমালশন, শুষ্ক ত্বকের জন্য ক্রিম।
উন্নত বিশ্বে শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী এবং বৃদ্ধ সবাই সানস্ক্রিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতন। সে তুলনায় আমাদের দেশে মাত্র ২০ শতাংশ মানুষ সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকে। তাই আমার পরামর্শ হলো ত্বককে সুন্দর ও সুস্থ রাখার জন্য নিয়মিত ত্বকের উপযোগী সানস্ক্রিন ব্যবহার করা ও ত্বকের যত্ন নেওয়া।

লেখা :ডা. তাওহীদা রহমান
ডার্মাটোলজিস্ট, বাংলাদেশ স্কিন সেন্টার

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Most searched keywords: Insurance, Loans, Mortgage, Attorney, Credit, Lawyer, Donate, Degree, Hosting, Claim, Conference Call, Trading, Software, Recovery, Transfer, Gas/Electricity, Classes, Rehab, Treatment, Cord Blood, domain, music, mobile, phone, buy, sell, classifieds,recipes
Top