স্ট্রেইট বা সোজা চুল সবসময়ই দেখতে সুন্দর। কিন্তু সবার চুল তো আর একরকম নয়। হুটহাট কোথাও যেতে হলে স্ট্রেইট চুল যাদের আছে তাদের সবচেয়ে কম ঝামেলা পোহাতে হয়। আর যাদের চুলে অনেক ঢেউ ও কার্ল আছে তাদের অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। তো যারা কার্লি বা কোকড়া চুল নিয়ে খুব একটা খুশি নন তারা নিচের কিছু উপায় অবলম্বন করলে নিজের চুলকে আরো সুন্দর ও স্ট্রেইট করতে পারবেন। তা-ও আয়রন/হেয়ার স্ট্রেইটনার ছাড়া!

যা করবেনঃ

  • চুল সবসময় ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুবেন। সপ্তাহে ২/৩ বারের বেশি শ্যাম্পু করবেন না। এতে চুলের উজ্জ্বলতা ও সিল্কি ভাব কমে যেতে পারে।
  • চুলে শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করবেন। খেয়াল রাখবেন কন্ডিশনার যেন স্কাল্প (Scalp) বা মাথার ত্বকে না লাগে। চুল ধুয়ে মোছার পর ভালো মানের হেয়ার সিরাম লাগাবেন। দোকানে অনেক ধরণের চুল স্ট্রেইট করার সিরাম পাওয়া যায়। পছন্দমত ব্র্যান্ড কিনে ব্যবহার করুন। ভালো কিছু সিরামের ব্র্যান্ড হলঃ Umberto Ginnini Sleek & Chic Seriously Straight Gloss Serum, Garnier Fructis Sleek & Shine Anti frizz Serum ইত্যাদি।
  • হেয়ার স্ট্রেইটনিং শ্যাম্পু ও ট্রিটমেন্টও ব্যবহার করুন। এই ধরণের শ্যাম্পু আপনার চুলকে স্ট্রেইট করে তুলবে না, কিন্তু এতে এমন উপকরণ আছে যা চুলের কার্ল ও ফুলে থাকা ভাব কমায়। এ ধরণের যেসব শ্যাম্পু ও ক্রিম ব্যবহার করে দেখতে পারেনঃ Pantene Pro-V Curly Hair Curls Straightening Shampoo,  EverSleek Sulfate-Free Smoothing System Intense Smoothing Shampoo, Garnier Fructis Silky Straight, Dove Smooth and soft Anti Frizz Cream ইত্যাদি।
  • চুল যতক্ষণ বাসায় থাকবেন টাইট করে খোপা করে রাখুন। এর ফলে চুলের কোকড়া ভাব কমে যাবে। তবে এটি হতে অনেক সময় নেয়। অন্তত ৪-৫ মাস সময় লাগবে ফলাফল পেতে।
  • শ্যাম্পু করার ১ ঘন্টা আগে চুলে হট অয়েল ম্যাসাজ করুন। এর জন্য নারকেল তেল বা বাদাম তেল হাল্কা গরম করে মাথায় স্কাল্পে ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন। এরপর বাকি সময় একটি তোয়ালে গরম পানিতে চিপড়িয়ে নিয়ে তা দিয়ে চুল মুড়িয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

এছাড়া ঘরে থাকা কিছু উপকরণ ব্যবহার করলেও চুল ম্যানেজ করতে অনেক সুবিধা হবে আপনার। যেমনঃ

  • একটি স্প্রে করার বোতল নিয়ে এতে ১/৩ কাপ দুধ ও ১/৩ কাপ পানি মেশান। শ্যাম্পু করার ২০ মিনিট আগে এই মিশ্রণ দিয়ে চুলের সব জায়গায় স্প্রে করে নিন ও চুল ভালো করে আঁচড়িয়ে নিন। এরপর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।
  • ১ টি ডিমের কুসুমের সাথে ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে ৪০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার।
  • ১ টি ডিমের কুসুমের সাথে ২ টেবিল চামচ দুধ মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে রাখুন ৪০ মিনিট। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার।
  • ১ টি কলা, ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল ও মধু মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার।

এই পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করার সাথে সাথে ফলাফল পাবেন না অবশ্যই মনে রাখবেন। আপনার চুলে যত বেশি ঢেউ/কার্ল আপনার চুল ম্যানেজ করতে তত সময় লাগবে।