জেনে নিন সবচাইতে সহজ ফেসপ্যাক তৈরির কৌশল

সৌন্দর্যচর্চার কৌশল এর টিপসের ছড়াছড়ি চারিদিকে। ঘন্টার পর ঘন্টা এই রূপচর্চা করেই কাটিয়ে দেওয়া যায়। কিন্তু আধুনিক নারীর কী আদৌ সেই সময় আছে? রূপচর্চার জন্য ঘন্টা দূরে থাক, পাঁচ মিনিট সময়ও পাওয়া যায় না। আর ঘরে তৈরি অমুক প্যাক, তমুক স্ক্রাব তো অনেক পরের কথা। কী করবেন ব্যস্ত এই নারীরা? আপনাদের জন্যই আজ রইলো সহজতম ফেসপ্যাক তৈরির কৌশলটি। খুব কম সময়ে এবং মাত্র দুইটি উপকরণে তৈরি হবে নির্ঝঞ্ঝাট এই ফেসপ্যাক।

এই ফেসপ্যাক তৈরিতে কী কী উপকরণ লাগবে? দরকার হবে দুই চা চামচ মধু এবং অর্ধেকটা লেবুর রস। আর কিছুই না, শুধু এই দুইটিই উপাদান। একটি বোলে মধু এবং লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। মুখ ভালো করে ধুয়ে এই মিশ্রণ মুখে লাগান। এর আগে মুখে স্টিম দিতে পারেন। তবে এক্সফলিয়েট করার পর এটা মুখে দেবেন না, লেবুর রসের কারণে মুখ জ্বলতে পারে। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। প্রথমে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে পরে ঠাণ্ডা পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এতে ত্বকের পোরগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। এরপর মুখ আলতো করে ধুয়ে নিন। রাত্রে ঘুমাতে যাবার আগে এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ব্যবহারের পর ভালো একটি ময়েশ্চারাইজার দিন মুখে।

এই ফেসপ্যাকের উপকারিতাগুলো হলো-

–   ব্রণ দূর করে

–   মুখ পরিষ্কার করে

–   পোর ছোট করে

–   ত্বক মসৃণ করে

–   জ্বালাপোড়া দূর করে

–   ত্বকে দীপ্তি নিয়ে আসে

ত্বকের শুকনোভাব দূর করে

–   ত্বক থেকে ব্যাকটেরিয়া দূর করে

–   ত্বকের রঙ উজ্জ্বল করে

কী কারণে এসব উপকারিতা পাওয়া যায়? লেবুর রসে থাকে আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড যা ত্বককে এক্সফলিয়েট করতে সাহায্য করে। এটা ত্বকের মৃত কোষ দূর করে, ত্বক থেকে ময়লা ওঠায়, মেকআপ তুলে ফেলে এবং পোর খুলে ফেলতে সাহায্য করে। বিভিন্ন স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টে আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড থাকে বটে কিন্তু বাড়িতেই লেবুর রস ব্যবহার করলে আপনি এই উপকারিতা পেতে পারেন। তবে এই প্যাক ব্যবহার করার পরে যদি বাইরে যান তবে অবশ্যই ভালো সানস্ক্রিন মুখে দিয়ে যাবেন। এ তো গেলো লেবুর রসের উপকারিতা। মধু হলো প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল। এটা আপনার ত্বককে রাখে সুস্থ, প্রাকৃতিকভাবেই।

 

কমেন্টসমুহ
সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top