রক্ষক যখন ভক্ষক

গত ০৩/০৬/২০১৯ইং তারিখে অনলাইনের মাধ্যমে সূবর্ন এক্সপ্রেসের নন-এসি ২ সিটের টিকেট কাটি। পিন ও মোবাইল নম্বর কালো কালিতে ব্লক করে অনলাইনে আপলোড করার সময় ভুলবশত অর্জিনাল কপিটি আপলোড হয়ে যায় পরবর্তীতে দেখার সাথে সাথে তা ডিলেট করে দেই (সর্ব্বোচ্চ ২মিনিট)। এ সুযোগটি কাজে লাগিয়ে অসুধপায়ে রেলওয়ে আরএনবিতে কর্মরত শরিফুল ইসলাম নামে এক ব্লেকার টিকেট ২টি চওড়া দামে (১৫০০ টাকায়) আরেকজনের কাছে বিক্রি করে দেয়। টিকেট ক্রয়কৃত লোকের নিকট থেকে মোবাইল নাম্বার নিয়ে শরিফুলকে ফোন দিলে উনি বলে প্রিন্ট করছিতো এখন কি করবেন? আমার কোন বালও ফালাতে পারবেন না। টিকেট প্রিন্ট করতে আমাদের কোন পিন কোড ও লাগে না। এ বলে মোবাইল কেটে দেয়।

পরবর্তীতে শুনলাম এই লোকটি ঐ বগীর আরো একজনের কাছে ৬টি টিকেট বিক্রি করেছে চওড়া দামে। এমনকি যে কোন সময়ই ওর কাছে টিকেট চাইলেই পাওয়া যায়।

আরএনবির সব লোক টিকেট চোরাকারবারীর সাথে জড়িত নয়। এই গুটি কয়েকটা অমানুষের জন্যই আজ রেলের টিকেটের এ অবস্থা। অমানুষটির (শরিফুল ইসলাম) মোবাইল নম্বর- ০১৯১৩৪৩৩৩১৫।

কমেন্টসমুহ
সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top