‘ওজনবান্ধব’ অভ্যাস

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে প্রতিদিন নিয়মিত অল্পবিস্তর শরীরচর্চা করতেই হবে। নইলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হবে না। শরীরচর্চার সময় না পেলে নিয়ম করে প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট হাঁটতে হবে। এতে করেও ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে, সেই সঙ্গে মিলবে আরো অনেক উপকারও

ডাল খাওয়া : এ ধরনের খাবার প্রোটিনসমৃদ্ধ। ফলে দুপুর বা রাতের খাবারে এক বাটি করে ডাল খেলে শরীরে প্রোটিনের মাত্রা বাড়তে শুরু করবে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেকক্ষণ পেট ভরা থাকবে। আর পেট ভরা থাকলে বারে বারে অল্প অল্প করে খাওয়ার প্রবণতাও কমে যাবে। সেই সঙ্গে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালরি জমে ওজন বৃদ্ধির আশঙ্কাও কমবে।

খাওয়ার সময় টিভি দেখা নয় : একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, খাওয়ার সময় টেলিভিশন দেখলে নিজের অজান্তেই বেশি খাওয়া হয়ে যায়। আর এমনটা হতে থাকলে ওজন বাড়তে সময় লাগে না। খেতে খেতে মোবাইল ঘাঁটলেও একই ঘটনা ঘটে।

সবজি ও ফল : দিনে তিনবার নিয়ম করে সবজি খেতে হবে। সেই সঙ্গে যেন অবশ্যই থাকে দুটি করে ফল। এই নিয়ম মেনে চললে শরীরে পুষ্টির ঘাটতি যেমন দূর হবে, তেমনি ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের মাত্রাও বাড়বে।

চিনি নিয়ন্ত্রণ : ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার একটি সহজ ফর্মুলা আছে। কী সেই ফর্মুলা? শারীরিক পরিশ্রমের সঙ্গে তাল রেখে ক্যালরি গ্রহণ করা গেলে ওজন বাড়ার কোনো আশঙ্কাই থাকে না। তাই চিনি খাওয়ার পরিমাণ কমাতে হবে।

কমেন্টসমুহ
সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top