বাংলাদেশে তরুণ বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার কারন জানালেন ডা. দেবী শেঠি

খাদ্যাভাসের কারণেই ভারত-বাংলাদেশের মানুষের হৃদরোগ বেশি হয় বলে জানিয়েছেন বিশ্বের খ্যাতিমান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠী।

শনিবার (১৫ জুন) দুপুরে চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি একথা জানিয়েছেন।

দেবী শেঠী বলেন, ‘ইউরোপে হৃদরোগ হয় অবসরকালীন সময়ে অর্থাৎ ষাট বছরের পর। আর ভারত-বাংলাদেশসহ এই অঞ্চলের মানুষের হৃদরোগ হয় তরুণ বয়স থেকে। এর প্রধান কারণ জিনগত। এখানকার মানুষের জীবনধারা, খাদ্যাভাস, ধূমপান, ডায়াবেটিস হৃদরোগের জন্য দায়ী।’

তিনি বলেন, ‘ভারত ও বাংলাদেশের মানুষ রোগ হওয়ার পর চিকিৎসকের কাছে যায়। কেন সুস্থ থাকার সময় যাবে না? সুস্থ থাকার সময়ও চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। সবকিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখতে হবে কতটা সুস্থ রয়েছি আমি।’

বাংলাদেশ ও ভারতের চিকিৎসা পদ্ধতি প্রায় একই মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘চিকিৎসা ব্যবস্থা এক। তারপরও কিছু লোক বাইরে যাচ্ছে বিকল্প ব্যবস্থার কারণে। ভারতে অনেকগুলো একই ধরনের হাসপাতাল রয়েছে। মানুষ বিকল্প বেছে নিতে পারছে। এখানে হয়তো এখনো সেভাবে বেশি বিকল্প তৈরি হয়নি।’

চট্টগ্রামে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো হৃদরোগের আধুনিক চিকিৎসা সেবা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন দেবী শেঠী। ইমপেরিয়াল হাসপাতালের প্রসঙ্গ টেনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইমপেরিয়াল হাসপাতালে আমাদের নারায়ণা হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ দল কাজ করবে। মাঝে মধ্যে আমিও আসব। আশা করি এখানকার মানুষ আধুনিক চিকিৎসা পাবে।’

এর আগে তিনি নগরীর পাহাড়তলীতে ৩৭৫ শয্যার বেসরকারি ইমপেরিয়াল হাসপাতালের উদ্বোধন করেন।

সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top aplikasitogel.xyz hasiltogel.xyz paitogel.xyz