রবীন্দ্রনাথের লাবণ্য কেতকী

একই উপন্যাসে দুই নারীর দুই রকম রূপ এঁকেছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। শেষের কবিতার লাবণ্য আর কেতকী সাজপোশাকে একদমই আলাদা। ২৫ বৈশাখ রবীন্দ্রনাথের জন্মজয়ন্তী সামনে রেখে তাঁর এই দুই চরিত্রের রূপ দেখার চেষ্টা করেছি আমরা।
কানিজ আলমাস খানশেষের কবিতার কেতকী আর লাবণ্যর ছবি যখন মনে আসে, তখনই ফিরে যেতে হয় গত শতাব্দীর বিশের দশকে। মানে, এক শ বছরেরও বেশি আগের বাঙালি জীবনধারায়। বাঙালি বলতে ব্রিটিশ-শাসিত ভারতের অভিজাত পরিবার। অমিত এবং তার দুই সহচরী কেতকী আর লাবণ্য তাদেরই সন্তান। তবে অবস্থানগত একটা পার্থক্য তাদের মধ্যে রয়েছে, তা হলো, অমিত আর কেতকীর আভিজাত্য শহুরে এবং লাবণ্যর আভিজাত্যে রয়েছে বাঙালিয়ানার ছাপ। ব্যক্তিত্বও তাদের আলাদা। রবীন্দ্রনাথ শহুরে এবং জাতিগত অভ্যাস ও স্বভাবের মধ্য দিয়ে কেতকী আর লাবণ্যর ফ্যাশন, স্টাইল ও সৌন্দর্য নির্দেশ করতে চেয়েছেন। এতেই উভয়ের মধ্যেকার পার্থক্য দৃশ্যমান হয়েছে।
খোঁপাতে দুজনেরই চুলের বাঁধন, তবে ঢংটা একদমই আলাদাফ্যাশন হলো মুখোশ আর স্টাইল হলো মুখশ্রী—অমিতের মুখ দিয়ে বলানো এই কথা, আমার মনে হয় রবীন্দ্রনাথেরই। নইলে কেতকী বাঙালি নারী হয়েও কেন শহুরে বা পাশ্চাত্য ধাঁচের জীবনযাপন ও পোশাক-আশাক, হেয়ার কাট ইত্যাদিতে অভ্যস্ত হবে আর লাবণ্য কেন অভিজাত পরিবারের মেয়ে হয়ে বাঙালি নারীর স্বভাবসিদ্ধ চেহারা অক্ষুণ্ন রাখবে? আমার এ-ও মনে হয়, স্টাইলকে রবীন্দ্রনাথ ব্যক্তির ভাবমূর্তির সহায়ক কিছু ভেবেছেন। ফ্যাশন বলতে তিনি সম্ভবত বুঝিয়েছেন ব্যক্তি নিজের ওপর যা আরোপ করে, নিজে যা ধারণ কিংবা বহন করে, তাকেই। ফলে কেতকী আর লাবণ্যর মুখোশ ও মুখশ্রী দুটোই আলাদা হয়ে গেছে। যদিও তাদের শ্রেণিগত অবস্থান মোটামুটি একই। তাদের বসবাসের স্থানগত ভিন্নতার কথা আগেই বলেছি। একজন কলকাতার বাসিন্দা, অন্যজন শিলংয়ের অধিবাসী। ফ্যাশন ও সৌন্দর্যে একজন শহুরে আভিজাত্যে লালিত, অন্যজন প্রকৃতির স্নিগ্ধতায় সমর্পিত।
মুক্তার গয়না আর এক পাশে সিঁথি—কেতকীর সাজে আধুনিকতারবীন্দ্রনাথ কেতকী ও লাবণ্যর লাইফস্টাইলেই বেশি আলো ফেলেছেন। লুকে ততটা নয়। ফলে, উভয়ের রূপ নানাভাবে চিত্রিত হয়েছে ভিজ্যুয়াল মিডিয়ায়। আমিও খানিকটা স্বাধীনতা নিতে চেয়েছি তাদের সৌন্দর্য দেখাতে গিয়ে। তবে সময়টা ভুলে গিয়ে নয়। কেতকী ও লাবণ্যকে দেখিয়েছি দুই সাজপোশাকে। মর্মে রেখেছি তাদের পৃথক স্থানিক জীবনধারার প্রকাশ কীভাবে ঘটানো যায়, সেই ভাবনাকে। তখনকার কলকাতার মেয়ে কেতকীর হেয়ারস্টাইলে রেখেছি বব কাট, এক পাশে সিঁথি। আর উঁচু করে বাঁধা চুলের মাঝখানে সিঁথি। চোখে আইলাইনার। ঠোঁটে হালকা লিপস্টিক। হাতে, গলায়, কানে মুক্তোর গয়না। পরনে ফিরোজা রঙের জর্জেট। স্লিভলেস ব্লাউজ। আমার কাছে এই হলো তখনকার দিনের শহুরে অভিজাত মেয়ে কেতকীর বিউটি অ্যান্ড ফ্যাশন স্টেটমেন্ট।
টিপ আর কাজল ছাড়া যেন লাবণ্যর সাজ অপূর্ণ, মডেল: নাদিয়া ও মাশিয়াত, সাজ: কানিজ আলমাস খান, পোশাক: টাঙ্গাইল শাড়ি কুটির ও স্টুডিও এমদাদ, ছবি: কবির হোসেন

অভিজাত বাঙালি পরিবারের মেয়ে হলেও প্রকৃতির স্নিগ্ধতা লাবণ্যর রূপে ছাপ ফেলেছে। তার চুল উল্টিয়ে আঁচড়ানো, আঁটসাঁট করে বাঁধা খোঁপা। আরেক হেয়ার স্টাইলে লম্বা বেণি। মাঝখানে সিঁথি। কপালে টিপ। চোখে হালকা কাজল। লিপস্টিকও মৃদু করে লাগানো। কানে ছোট টপ। হাতে সোনার দুগাছি সরু চুড়ি। পরনে ঘিয়ে জামদানি শাড়ি, তাতে লাল-নীল সুতার কাজ। আরেকটি লুকে সুতির ছাপা শাড়ি। সাদা হাফ সিল্কের মধ্যে নীল সুতার কাজ। হাফ হাতা ব্লাউজ। লাবণ্যর ব্যক্তিত্বে সাদামাটা ভাবের সঙ্গে আভিজাত্যের যে সমন্বয় ঘটেছে, তা প্রকাশ করতে গিয়ে এই সাজ আমার কাছে যৌক্তিক ও বিশ্বস্ত মনে হয়েছে।

আবার বলি, আমি এই দুই নারীর জীবনধারা, তখনকার সৌন্দর্যবোধ, উভয়ের সামাজিক ও স্থানিক পরিচয় ইত্যাদি মনে রেখে তাদের সাজানোর চেষ্টা করেছি। তবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শেষের কবিতায় কী রূপে কেতকী আর লাবণ্যকে দেখেছেন, তাতে জোর দিতে চেয়েছি বেশি। কারণ, এই দুই বাঙালি নারী তো তাঁরই সৃষ্টি। আমরা তাদের আবিষ্কারের চেষ্টাই কেবল করতে পারি!
লেখক: রূপবিশেষজ্ঞ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, পারসোনা গ্রুপ।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Most searched keywords: Insurance, Loans, Mortgage, Attorney, Credit, Lawyer, Donate, Degree, Hosting, Claim, Conference Call, Trading, Software, Recovery, Transfer, Gas/Electricity, Classes, Rehab, Treatment, Cord Blood, domain, music, mobile, phone, buy, sell, classifieds,recipes
Top