গাছে ওঠার যন্ত্র তৈরি ভারতীয় কৃষকের

বিজ্ঞানী নয়, নারিকেল বা সুপারি গাছে চড়তে একটি ভিন্নধর্মী যন্ত্র আবিষ্কার করে আলোচনায় উঠে এসেছেন ভারতের এক কৃষক। ইতোমধ্যে সারাদেশ থেকে কয়েকশো অর্ডারও পেয়েছেন তিনি।

মোটরসাইকেলের মতো দেখতে একটি যন্ত্র দিয়ে গাছ বেয়ে ওপরে উঠে সুপারি পাড়া হচ্ছে। আর ভিন্নধর্মী এই যন্ত্রটি কোনো বিজ্ঞানীর আবিষ্কার না।

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের এক কৃষক এর আবিষ্কারক, যার নাম গণপতি ভাট।

২৮ কেজি ওজনের যন্ত্রটি দিয়ে মাত্র ৩০ সেকেন্ডে যেকোনো নারিকেল বা সুপারি জাতীয় গাছে ওঠা যায়। আর এতে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হয় পেট্রোল।

গণপতি ভাট জানান, বেশকিছু যন্ত্রের সমন্বয়ে এটি তৈরি করেছেন তিনি। নতুন কোনো কৃষি যন্ত্র বাজারে আসলেই সেটা ক্রয় করা আমার অভ্যাস। তারপর সেটার ভুলগুলো খুঁজে বের করি আমি। এই যন্ত্রটা আমার নিজের তৈরি, যা চোখের পলকে ৩০ মিটার পর্যন্ত উঠতে পারে।

পরিবারের সদস্যদেরকেও এ কাজে যুক্ত করেছেন তিনি।

গণপতি ভাটের মেয়ে বলেন, বাবার দেখাদেখি আমিও যন্ত্রটি দিয়ে গাছে উঠার চেষ্টা করি। শুরুতে একটু ভয় লাগলেও এখন কিছুই মনে হয় না। একটি গাছে যেখানে স্বাভাবিকভাবে চড়তে অন্তত ১০ মিনিট লাগে সেখানে এই যন্ত্রটির সাহায্যে এক ঘণ্টায় ৮০ বার ওঠা নামা করা যায়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, যন্ত্রটি কৃষকদের কষ্ট অনেকটা লাঘব করবে। ভাট যা করেছেন তা অবশ্যই কৃষকদের উপকারে আসবে। এর দামও খুব বেশি না।

৪৮ বছর বয়সী এই কৃষক জানান, ভিন্নধর্মী যন্ত্রটি কেউ কিনতে চাইলে তাকে ৭৫ হাজার রুপি খরচ করতে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই গেল এক সপ্তাহে অন্তত ৩০০টি যন্ত্রের অর্ডার পেয়েছেন তিনি।

সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top aplikasitogel.xyz hasiltogel.xyz paitogel.xyz