সে বলে, আপনার সব চাহিদা আমি পূরণ করবো কিন্তু আমাকে বিয়ে করতে পারবেন না…

প্রশ্নটি আমাদের ফেসবুক পেজে করেছেনঃ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পুরুষ

আমি বিয়ে করেছি ১৫ বছর প্রায়। আমার তিনটি মেয়ে আছে। ছোট মেয়েটা সিজারে হয়। তারপর থেকে আমার স্ত্রী যৌন শক্তি হারিয়ে ফেলে। তার ইনফেকশন হয়েছিলো। স্ত্রী অসুস্থ থাকায় আমার শালি আমার সংসারের হাল ধরে। যাবতীয় সবকিছু সে করে।

একদিন কেন যেন ওকে ভালো লেগে যায়। সে ওর বোনের অক্ষমতার কথা জানতো। তাকে আমি সবকিছু শেয়ার করি এবং বলি যে তাকে বিয়ে করবো। সে বলে আপনার সব চাহিদা আমি পূরণ করবো কিন্তু আমাকে বিয়ে করতে পারবেন না। আরো বলে, তাকে বিয়ে দিতে হবে কিন্তু সে আমাকে বিয়ের পরও নিয়মিত সময় দেবে।

আমি রাজী হই এবং তাকে বিয়ে দেই। তার বিয়ের পর তার স্বামী বাচ্চা নিতে অনেক চেষ্টা করে কিন্তু ও কনসিভ করেনা। তারা ডাক্তার দেখায় কিন্তু কোন ফল পায়না। এমতাবস্তায় আমি একদিন তার সাথে শারীরিক ভাবে মিলিত হই। কিছুদিন যেতে না যেতে সে কনসিভ করে।

এখন আমি কিছুতেই তাকে ভুলতে পারিনা আবার প্রথম স্ত্রীকেও ফেলতে পারবোনা আমার সন্তানদের দিকে তাকিয়ে। আমি কী করতে পারি? দয়া করে একটা ভালো বুদ্ধি দিবেন।

 

পরামর্শ

দেখুন ভাই, আপনি যে অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন সেটা অসম্ভব জটিল একটি সমস্যা। একটি ভুল সিদ্ধান্ত বা পদক্ষেপ আপনাদের সবার জীবন নষ্ট করে দেবে। আপনার, আপনার স্ত্রী ও শালীর তো বটেই। একই সাথে আপনার বাচ্চাগুলোর জীবন একেবারে ধ্বংস হয়ে যাবে।

প্রথমত ভাই, আপনার উচিত ছিল স্ত্রীর ভালো চিকিৎসা করানো। আজকাল অত্যাধুনিক চিকিৎসা বের হয়েছে। আমার বিশ্বাস স্ত্রীর চিকিৎসা করালে তিনি সুস্থ হয়ে যাবেন। আমার পরিচিতা এক মহিলা এমন সমস্যার ভুগেছিলেন, তিনি এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। তাই প্রথমেই স্ত্রীর চিকিৎসা করাবেন।

হ্যাঁ ভাই, আমি বুঝি যে আমরা সবাই মানুষ, আমাদের সকলেরই চাহিদা আছে। কিন্তু ভাই, দাম্পত্য মানে কি কেবলই শারীরিক সম্পর্ক। নিজেকে দিয়ে চিন্তা করুন। আজ যদি আপনি পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে থাকতেন আর আপনার স্ত্রী আপনারই ছোট ভাইয়ের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করে যৌন সুখ নিতেন, বিষয়টা কি ভালো লাগতো আপনার? কিংবা কাজটা কি ঠিক হতো? একেবারেই না। ধর্ম, সমাজ, বিবেক কোন দিক দিয়েই এটা মোটেও উচিত কোন কাজ নয়। একেবারেই উচিত নয়। একই কাজ যখন আপনি করছেন, আপনার ক্ষেত্রেই সেটা অনুচিত। আপনি আইন সম্মত ভাবে দ্বিতীয় বিয়ে করলেও চলতো, কিন্তু নিজের স্ত্রী বোনের সাথে অবৈধ সম্পর্ক… ব্যাপারতাই নিদারুন কুৎসিত।

যাই হোক, আপনার উচিত হবে ভাই ব্যাপারটি থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টা করা। আপনার একটি ভুল ধারণা আছে, আপনি মনে করছেন যে শ্যালিকা আপনাকে ভালোবাসে। এই ধারণা সত্যি নয়। শ্যালিকা আপনাকে সময় দেয়, যেন তাঁর বোনের সংসারটি ভেঙে না যায় বা আপনি অন্য কোন নারীর প্রতি আকৃষ্ট না হন। শ্যালিকা আপনাকে ভালোবাসে না এবং আপনার সাথে জীবনও কাটাতে চায় না। তাই দয়া করে শ্যালিকার কথা ভেবে ভেবে পাগল হবেন না। সে আপনাকে ভালোবাসে না বলেই আরেকজনের সাথে বিয়ে করেছে। দুনিয়াতে কে চায় নিজের বোনের সতীন হতে বলুন?

আপনি বলছেন তাঁকে ভালোবাসেন, ভুলতে পারছেন না। যদি সত্যিই তাঁকে ভালোবেসে থাকেন, তবে তাঁকে নিজের সংসারে শান্তিতে থাকতে দিন। তাঁর যদি আপনার কাছে আসার ইচ্ছা থাকে, সে নিজেই আসবে। জোর করে তাঁর সুখের সংসারে আগুন জালতে যাবেন না। এতে আপনি ঘৃণার পাত্রে পরিণত হবেন।

সন্তান গুলোর কথা ভাবুন ভাই। বাবা হিসাবে কর্তব্যই সবার আগে। শারীরিক সুখের চাইতে অনেক ওপরে। আর আপনার সাথে যৌন সম্পর্ক করে শ্যালিকা কনসিভ করেছে, এই ভুল ধারণাও মাথায় রাখবেন না। ব্যাপারটি নিতান্ত কাকতালীয় হবার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ শ্যালিকা ও তাঁর স্বামীও সন্তান নেবার চেষ্টাই করে যাচ্ছিলেন। তাই খুব সম্ভবত তাঁদের চেশ্তাই ফলপ্রসূ হয়েছে। তাছাড়া শ্যালিকা কখনোই স্বীকার করবেন না যে সন্তানটি আপনার। তাই অহেতুক ঝামেলা বাড়াবেন না।

 

 

কমেন্টসমুহ
সিক্রেট ডাইরি সিক্রেট ডাইরি

Top